ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করার নিয়ম

আপনি যদি ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করতে চান কিংবা ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করার নিয়ম সম্পর্কে তথ্য জেনে নিতে চান, তাহলে সেটি এখান থেকে জেনে নিতে পারবেন।

আপনি জানলে অবাক হবেন যে আপনি চাইলে জাতীয় পরিচয়পত্র নাম্বার দিয়ে খুব সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার খুঁজে বের করতে পারবেন।

আর যখনই আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার খুঁজে বের করতে সক্ষম হবেন, তখন আপনি চাইলে এই জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিয়ে আপনার জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কিত যেকোন রকমের তথ্য অনুসন্ধান করতে পারবেন।

সেজন্য কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড কিংবা জাতীয় পরিচয় পত্র দিয়ে জন্ম নিবন্ধন নাম্বার বের করতে হয় সে সম্পর্কিত তথ্য এই আর্টিকেল থেকে জেনে নিন।

ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করা

ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করার জন্য আপনাকে যে সমস্ত পদক্ষেপ অনুসরণ করতে হবে সেগুলো নিচে ধাপে ধাপে আলোচনা করা হলো।

এই কাজটি করার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম বাংলাদেশ ভোটার আইডি কার্ডের যে ওয়েবসাইট রয়েছে, সেখানে লগইন করে নিতে হবে কিংবা একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।

আপনি যদি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে সর্বপ্রথম নিম্নলিখিত লিংকে ভিজিট করতে হবে।

[su_button url=”https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/claim-account” background=”#2d7cef” size=”6″ icon=”icon: check” text_shadow=”0px 0px 0px #faf9f9″] রেজিস্ট্রেশন করুন[/su_button]

 

একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করে নেয়ার জন্য যখনই আপনি উপরে উল্লেখিত লিংকে ভিজিট করবেন, তখন আপনার সামনে নিম্নলিখিত স্ক্রীনশটএর মত একটি পেজ ওপেন হবে।

এবার এই পেইজটিতে আপনাকে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার, জন্মতারিখ, নাম এবং ফোন নাম্বার দেয়ার মাধ্যমে একাউন্ট তৈরী করে নিতে হবে।

আপনার কাছে যদি জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার না থেকে থাকে, তাহলে আপনি চাইলে আপনার ভোটার আইডি কার্ড স্লিপের নাম্বার দেয়ার মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে পারবেন।

অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নেয়ার জন্য শুধুমাত্র আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বার, আপনার মোবাইল নাম্বার এবং তারপরে আপনার মোবাইল নাম্বারে একটি ভেরিফিকেশন কোড আসার পরবর্তী সময়ে ভেরিফিকেশন করতে দেয়ার পরে একটি নতুন পাসওয়ার্ড সেটাপ করে নিতে পারবেন।

ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করার নিয়ম

যখনই পাসওয়ার্ড সেটআপ করার কাজ সম্পন্ন হয়ে যাবে তখন আপনি এখানে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে ফেলতে সক্ষম হবেন।

অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নেয়ার কাজ সফলভাবে সম্পন্ন হয়ে যাওয়ার পরে নিম্নলিখিত লিংকে ক্লিক করার মাধ্যমে অ্যাকাউন্টে লগ-ইন করে নিন।

[su_button url=”https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/?locale=bn” background=”#2d7cef” size=”6″ icon=”icon: check” text_shadow=”0px 0px 0px #faf9f9″]লগইন করুন[/su_button]

 

উপরে উল্লেখিত লিংকে ভিজিট করার পরে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বার কিংবা ইউজার আইডি এবং আপনার একাউন্টে পাসওয়ার্ড দেয়ার মাধ্যমে ওয়েবসাইটে লগইন করে নিন।

Profile Details” অপশন এর উপরে ক্লিক করতে হবে।

যখনই আপনি ভিউ প্রফাইল অপশনটির উপরে ক্লিক করে দিবেন, তখন আপনি এখানে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র সম্পর্কিত যে সমস্ত তথ্য রয়েছে প্রত্যেকটি তথ্য দেখতে পারবেন।

এবং পেইজটিকে যদি আপনি একটু নিচের দিকে স্ক্রল করেন, তাহলে এখানে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি দেখে নিতে পারবেন।

"</p

আর যখনই আপনি জন্ম নিবন্ধন নাম্বার একটি পেয়ে যাবেন। তখন আপনি চাইলেই জন্ম নিবন্ধন নাম্বারের মাধ্যমে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করে নিতে পারবেন।

আর জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করে নেয়ার পরে আপনি চাইলে এটি প্রিন্ট করার মাধ্যমে ব্যবহার করতে পারবেন কিংবা ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জন্ম নিবন্ধন সনদ সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করা পরে করনীয়

যদি আপনি জাতীয় পরিচয় পত্র দিয়ে জন্ম নিবন্ধন নাম্বার খুজে বের করে ফেলতে পারেন, তাহলে এবার আপনি চাইলে আপনার জন্ম নিবন্ধন তত্ত্বটি যাচাই করে তারপরে প্রিন্ট করতে পারবেন।

এবার আপনি যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে চান, তাহলে সেই সম্পর্কিত তথ্য নিচের আর্টিকেল থেকে জেনে নিতে পারেন।

জেনে নিন: জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার উপায়

উপরে উল্লেখিত আর্টিকেলটি দেখে নিলে আপনি জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন এবং যখনই আপনি সেটি যাচাই করে নিতে পারবেন, তখন আপনি চাইলে সেটি প্রিন্ট আউট করতে পারবেন।

অথবা আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন প্রতিলিপির জন্য কিংবা পুনর্মুদ্রণ করার জন্য আবেদন করতে চান, তাহলে সেটি এই জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিয়ে করতে পারবেন।

জেনে নিন: জন্ম নিবন্ধন পুনর্মুদ্রণ করার নিয়ম

উপরে উল্লেখিত আর্টিকেলটি দেখে নিলে আপনি জন্ম নিবন্ধন পুনর্মুদ্রণ করার নিয়ম সম্পর্কে তথ্য জেনে নিতে পারবেন এবং জন্ম নিবন্ধন পুনর্মুদ্রণ করতে পারবেন।

অথবা এই বিষয়টির যদি আপনার কাছে অনেক কষ্টকর মনে হয়, তাহলে আপনি চাইলে ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে জন্ম নিবন্ধন সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top